FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

স্বাস্থ্যকর খাবারে আসক্ত হোন ১৫টি উপায়ে..

স্বাস্থ্যকর খাবারে আসক্ত হোন ১৫টি উপায়ে..

*

স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হলে কিছু অভ্যাসnগড়ে তুলতে হবে। এখানে বিশেষজ্ঞরা ১৫টিnঅভ্যাসের কথা তুলে ধরেছেন। এগুলো চর্চারnমাধ্যমে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলুন।nএ সবই বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি বলে বিবেচিতnহয়।

১. যে খাবার ভালো লাগে : খাবার কম খাওয়ার মাধ্যমেই ওজন সহজে কমানো যায়nবলে মনে করা হয়। কিন্তু এতে খুব কম উপকারnপাওয়া যায়। নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়েরnএক গবেষক বলেন, অপছন্দের খাবার খেলে তাnদেহের জন্যে ক্ষতির কারণ হয়ে ওঠে।nখাদ্যগ্রহণ আনন্দের বিষয়। তাই পছন্দের খাবার আনন্দের সঙ্গে খেলে তা ওজন বৃদ্ধিরnমতো ক্ষতিকর কারণের মাধ্যম হয় না।

২. প্রোটিনের পরিমাণ : খাবারের সঙ্গে মানসিক বিষয়টি জড়িত। ওজন কমানোরnবিষয়টি যদি মনের মাঝে থাকে তাহলেnপ্রোটিন গ্রহণের সময় সাবধানতা অবলম্বনnকরেন অনেকেই। যদি খাবারের আকার বেছেnখাওয়া হয়, তবে প্রোটিন নিয়ন্ত্রণে থাকতেnপারে।

৩. রেস্টুরেন্ট এড়িয়ে যান : লাঞ্চের খাবারটা বাড়ি থেকে নিজেই প্যাক করেnনিয়ে যান। কারণ রেস্টুরেন্টে ঢুকলে অধিকnক্যালরি পেটে যাবে।

৪. ফাইবার ও প্রোটিন : যে সব খাবার ফাইবার ও প্রোটিন রয়েছে সেগুলো খাওয়ারnঅভ্যাস গড়ে তুলুন। প্রক্রিয়াজাত ক্যান্ডিবারnবা কুকি এড়িয়ে যাবেন। তা ছাড়া ওজনnকমানোর খাদ্যতালিকা করতে গেলে এসবnখাবারাই বেছে নিতে হয়।

৫. মেডিটেরিয়ান খাবার : অলিভ ওয়েল, পাস্তা, টমেটো বা শশা ইত্যাদিnমেডিটেরিয়ান খাবার বেছে নিন। এগুলোnস্বাস্থ্যের জন্যে উপকারী।

৬. খাবার থেকে ক্যালরি গ্রহণ : পানীয় থেকে ক্যালরি নেবেন না। খাবার থেকেnক্যালরি গ্রহণ করুন। ওজন বৃদ্ধির জন্যেnক্যালরিপূর্ণ বেভারেজ দারুণভাবে দায়ীnথাকে।

৭. বেশি বেশি বাছাই নয় : অনেকেই এটা খান তো ওটা খান না। এভাবে খাদ্যতালিকা করেnনিলে হিতে বিপরীত হবে। বিভিন্ন ধরনেরnখাবার বেছে নিন। স্বাস্থ্যকর খাবারেরnঅভাব নেই। সেগুলো খাওয়ার চেষ্টা করুন।

৮. গাট ব্যাকটেরিয়া : পাকস্থলীতে যে ব্যাকটেরিয়া বাস করে তা হজমে সহায়তাnকরে। যে সব খাবারে অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়াnউৎপন্ন হয় সেগুলো খাওয়ার চেষ্টা করেন। এnজন্যে সবজি, দুগ্ধজাত খাবার, ডিম এবং মাছnখান।

৯. ট্রেডমিলে লাভ নেই : বাড়িতে দৌড়ানোর এ যন্ত্র বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু এতে দেহেরnতাপ উৎপন্ন হয়। অন্য কোনো উপকার পাওয়াnযায় না। তাই ট্রেডমিলে বেশি সময় নাnদিয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার বেছে নিন।

১০. রাতে ব্যায়াম নয় : অনেকে রাত জেগে ব্যায়াম করেন। কিন্তু এর চেয়ে রাতের ঘুমnবেশি উপকারী। রাতে জেগে থাকার ফলে ওজনnবৃদ্ধি পায়।

১১. সকালের নাস্তা : সকালটা নাস্তা না করে থাকবেন না। এটাই দিনের সবচেয়েnগুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সকাল সকাল স্বাস্থ্যকরnখাবার খেলে দেহ সুস্থ থাকবে।

১২. ডিনারের পর স্ন্যাক্স নয় : ডিনারের পর অনেকেই স্ন্যাক্স খেয়ে থাকেন। এতে দেহেnঅতিমাত্রায় ফ্যাট ও কার্ব আসে।

১৩. ডায়েট ড্রিঙ্ক নয় : সোডা অথবা ডায়েট ড্রিঙ্ক ওজন বৃদ্ধিতে দায়ী থাকে। একnগবেষণায় দেখা যায়, যারা প্রতিদিন ডায়েটnড্রিঙ্ক খেয়ে থাকেন, তাদের কোমরের মেদnবৃদ্ধির সম্ভাবনা ৭০ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

১৪. ক্ষুধা রাখতে নেই : এক গবেষণায় দেখা গেছে, ক্ষুধার্ত অবস্থায় থাকলে শুধু ভালোnভালো খাবারের কথা চিন্তায় আসে। দ্বিতীয়nবিশ্বযুদ্ধে সময় এক গবেষণায় দেখা গেছে,nআহত ও ক্ষুধার্ত কয়েকজন মানুষকে চাহিদারnচেয়ে কম খাবার দেওয়া হতো। এতে তাদেরnওজন কমেছিল ঠিকই। কিন্তু অন্যান্য স্বাস্থহানিকর অবস্থা দেখা দেয়। তাদেরnচুল পড়ে যেতে লাগলো, দেহের ক্ষত নিরাময়nহচ্ছিল না। পরে খেতে দেওয়া হলে এসবnসমস্যা দূর হয় এবং তারা বেশ সুস্থ হয়েnওঠেন।

*




0 Comments 184 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2020