FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

ক্রিকেট নিয়ে কিছু স্মৃতি

ক্রিকেট নিয়ে কিছু স্মৃতি

*

অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান : ২০০৭ সাল,,তখন যশোরে থাকতাম।বয়স ৭ ও হয় নি তখন।।অস্ট্রেলিয়া বনাম পাকিস্তান এর টি টুয়েন্টি ম্যাচ হচ্ছিলো।।আব্বু ছিলো পাকিস্তান,,আমি তেমন বুঝতাম না।।কিন্তু অস্ট্রেলিয়াকে সাপোর্ট করতাম।।অস্ট্রেলিয়া হেরে গেলো,,কতক্ষণ যে কেদেছিলাম হিসাব নেই।

২। ভারত-পাকিস্তান : তারপর হয়ে গেলাম পাকিস্তান এর সাপোর্টার, ২০০৭ এর টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ এর ফাইনাল ম্যাচ চলছিলো ভারত বনাম পাকিস্তান।ম্যাচটি দেখেছিলাম সম্পূর্ণ।।যখন ৩ বলে ৫ রান দরকার ব্যাটিংয়ে মিসবাহ উল হক।।আমি কি একটা কারণে পাশের রুমে গিয়েছিলাম,,এসে দেখি ক্যাচ আউট।।ফলাফল আবারো কতক্ষণ যে কেদেছিলাম হিসাব নাই।

৩। অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান : সময় টা ২০১০,,তখন আবার অস্ট্রেলিয়ার সাপোর্ট করি।।টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল ম্যাচ।হারার শেষ প্রান্তে অস্ট্রেলিয়া,,কিন্তু মাইক হাসি সেদিন একাই দেখিয়ে দিয়েছিলো।।সেই দুর্দান্ত ফিনিশিং এখনো আমার চোখে ভেসে আসে।।

৪.অস্ট্রেলিয়া- ভারত : ২০১১ বিশ্বকাপের ম্যাচ,, কোয়ার্টার ফাইনাল।।ওয়াটসন তখন আমার প্রিয় ক্রিকেটার,,পন্টিং কে ভালো লাগতো।।কিন্তু চেয়েছিলাম ২০১০ এ অবসর নিক।।কিন্তু সেদিন কি দুর্দান্ত সেঞ্চুরি টা উপহার দিয়েছিলো পন্টিং।।মন ছুয়ে গিয়েছিলো।ম্যাচটি ইন্ডিয়া জিতেছিলো কিন্তু ব্রেট লির হার না মানার মানসিকতা সেদিন দেখেছিলাম।।ফিল্ডিং করতে গিয়ে মাথা পর্যন্ত কেটে যায়।।সেদিন ও কেদেছিলাম।।

৫।বাংলাদেশ-ভারত : বাংলাদেশ তখনো খুব ভালো টিম ছিলো না,,এশিয়া কাপে সেদিন শচীন যখন সেঞ্চুরি করেছিলো কেন যেন মনে হচ্ছিলো বাংলাদেশ জিততে পারে।।হ্যা সেদিন সাকিব,তামিম,মুশফিক দেখিয়ে দিয়েছিলো আমরাও পারি।।এটা ২০১২ এর ম্যাচ সম্ভবত।।

৬. বাংলাদেশ-পাকিস্তান : এশিয়া কাপের ফাইনাল ছিলো ২০১২ এর সম্ভবত।।।অনেক উত্তেজনা ছিলো পুরো ম্যাচ জুড়ে,,চাচাত বোন,,ভাগ্নে সহ অনেকে ম্যাচ টা একসাথে দেখেছিলাম।।মাশরাফি যখন বাউন্ডারি হাকালো তখন মনে হয়েছিলো আমরা বুঝি কাপটা পেয়ে গিয়েছি।।কিন্তু না শেষ পর্যন্ত হেরেছিলাম সেদিন।।বারান্দায় এসে কেদেছিলাম।

৭.অস্ট্রেলিয়া- ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ক্লাস ফোরে পড়তাম,,২০১২ এর টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপে সেবার অস্ট্রেলিয়া সেই রকম ফর্মে ছিলো।।সেমি তে সেদিন গেইল আর পোলার্ডকে থামাতে পেরেছিলো না।।কিছুই করতে পারে নি ওয়াটসন-ওয়ার্নাররা।।বেইলি আশা দেখালেও সেই আশা শুধু ব্যবধান কিছুটা হ্রাস করেছিলো।।খেলাটা বাড়ির পাশের ভাইয়াদের বাড়ি দেখেছিলাম।।অনেক বেশি কেদেছিলাম।

৮.অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান : কেন জানি পাকিস্তান এর ম্যাচ হলে ছোট থেকে আমি কাদতে হতো।।এটা ছিলো ২০১৪ টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচ।।ওয়ার্নার,,ফিঞ্চ,,ওয়াটসন,,বেইলি,,ম্যাক্সওয়েল।এই টিমের কাছে ট্রফি আশা করেছিলাম।।১৮০+ টার্গেটে যখন ৮ রানে ২ উইকেট পড়ে যায় ম্যাক্সওয়েল ১৮ বলে ৫৪ করে ফেলে।আজমলে,হাফিজ দের মতো বলার সেদিন ম্যাক্সওয়েলের সামনে খুবই অসহায় ছিলো।।৬০ বলে ৭৮ দরকার হাতে ছিলো ৮ উইকেট।।ম্যাচটা অস্ট্রেলিয়া হেরেছিলো।। ম্যাক্সওয়েল ৭৫ এ আর ফিঞ্চ ৫০+ তে আউট হওয়ার পর বাকিরা সেদিন কিছুই করতে পারে নি।।সব থেকে বেশি কেদেছিলাম এই ম্যাচে।।

৯.অস্ট্রেলিয়া- ভারত : ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল ম্যাচ,,,সেদিন স্মিথ সেঞ্চুরি করেছিলো।।শেষে জনসনের ৯ বলে ২৭ রানটা খুবই কার্যকরী ছিলো।।৩২৭ এর টার্গেটে ইন্ডিয়া যেন কিছু মনেই,করছিলো না।।কিছুক্ষণ পরে অস্ট্রেলিয়া দারুণ ভাবে ঘুরে দাড়ায় আর ম্যাচটা জিতে যায়।।।অনেক মজা পেয়েছিলাম ম্যাচটায়।

১০.অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড : ২০১৫ বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ।।অস্ট্রেলিয়ার সাপোর্ট করার পর তখনও বিশ্বকাপ জেতা দেখি নি।।।সেদিন ফকনার স্টার্কের দুর্দান্ত বলিং এ অন্যতম ফেবারিট নিউজিল্যান্ড ২০০ ও করতে পেরেছিলো না।।অধিনায়ক ক্লার্কের শেষ ওয়ানডেতে ৭৬ ও স্মিথের ফিফটি ৮ উইকেটে জয় এনে দেয়।।।

ছোট থাকতে আবেগে কাদতাম, খেলা দেখতে দেখতে,,আজ কেন জানি সব চোখের সামনে ভেসে আসলো।।তাই লিখলাম কিছুক্ষণ ধরে।।এখন আর এসব পাগলামি করা হয় না,,,,কিন্তু এই সব পাগলামির কথা অনেকে এখনো মনে করিয়ে দেই।😁😁

*




5 Comments 114 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2021