FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

নারীর চাকরির ব্যাপারে আলেমগণের মতামত

নারীর চাকরির ব্যাপারে আলেমগণের মতামত

*

🖤নারীদের চাকরি করা যাবে তবে কিছু শর্তসাপেক্ষে।
১.পরিপূর্ণ পর্দা পালন করতে হবে। শরিয়ত যেখানে অনুমতি দেয়না সেই জায়গায় চাকরি করা জায়েজ নয় । যেখানে নন মাহরাম দের সাথে কথা বলতে হবে, গল্প করতে হবে সেখানে নারীদের চাকরি জায়েজ নয়।
২.যদি বিবাহিত হয়,স্বামীর অনুমতি লাগবেই লাগবে। স্বামীর অনুমতি ছাড়া কোনো চাকরি নেই।
স্বামিও অনুমতি দেবে যখন সংসার চলতেছে না তখন।
ঘরের জগতের কর্নধার হচ্ছে মা আর বাইরের জগতের কর্নধার হচ্ছে বাবা।
-ডক্টর মুহাম্মদ আবু বকর যাকারিয়া।


🖤নারীদের চাকরি করা যাবে তবে পরিপূর্ণ পর্দা,নিজের সিকিউরিটি, সেফটি নিশ্চিত করে স্বামীর অনুমতি নিয়ে চাকরি করতে পারে। মেয়েদের কন্ঠেরও পর্দা করতে হবে।
-মিজানুর রহমান আজহারী


🖤স্বামীর অনুমতি নিয়ে, ইসলামি শরিয়াহ মেনে মেয়েরা চাকরি করতে পারে। কিন্তু মেয়ে যদি আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য চাকরি করতে চায় তাহলে ইসলাম অনুযায়ী তা সঠিক নয়। ইসলাম শরিয়াহ অনুযায়ী পুরুষরা উপার্জন করবে,নারীরা নয়।নারীদের এই দ্বায়িত্ব দেয়া হয়নি তারা আর্থিকভাবে সিকিউরড।বিয়ের আগে তার দ্বায়িত্ব থাকে বাবা এবং ভাইয়ের উপরে, আর বিয়ের পর স্বামী এবং ছেলের উপরে।
যদি কোন নারী আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য চাকরি করতে চায় যদিও তার স্বামী আর্থিক দিক দিয়ে ভালো। আমার মতে এটা যুক্তিসঙ্গত না।এটা অনেকটা পশ্চিমা কালচারের মতো হয়ে ।
-ডক্টর যাকির নায়েক


🖤নারী চাকরি করতে পারবে তবে নারী বৈশিষ্ট্য অক্ষুণ্ণ রেখে, শরিয়ত মেনে চাকরি করা বৈধ।তবে আয় উপার্জনের দ্বায়িত্ব পুরুষের কাঁধে। নারীদের এই দ্বায়িত্ব দেয়া হয়নি বরং নারীরা এক্ষেত্রে স্বাধীন এবং পরবর্তী প্রজন্মকে যাতে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারে সেটা বেশি জরুরী।
-ডক্টর খন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর স্যার


🖤নারীর চাকরি করা যাবে তবে তার স্বামীর অনুমতি লাগবে। স্বামীর অনুমতি ছাড়া চাকরি করতে পারবেন না।আর পর্দার যাতে ব্যাঘাত না ঘটে সেটাও খেয়াল রাখতে হবে। যদি এমন হয় নারীকে চাকরি করতে গিয়ে পুরুষের সাথে ডিল করতে হচ্ছে, পুরুষদের সাথে কথাবার্তা বলতে হচ্ছে, পুরুষদের সাথে উঠবস করতে হচ্ছে, নিজের ইচ্ছে মতো পর্দা করতে পাচ্ছে না তাহলে সেখানে চাকরি করা বৈধ হবে না।
-শায়খ আহমাদুল্লাহ


🖤প্রয়োজনে নারীরা চাকরি করতে পারে তবে প্রয়োজন না হলে তারা নিজ গৃহে অবস্থান করবেন। প্রয়োজন হলে পর্দা রক্ষা করে, শালিন পরিবেশে চাকরি করতে পারবেন। বিভিন্ন দেশে মেয়েদের এরকম সুব্যবস্থা করে দেয়া হয়েছে যেখানে নারীদের আলাদাভাবে ব্যবস্থা করে দেয়া হয়।
-ডক্টর মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ


🖤মেয়েরা চাকরি করতে পারবে যেখানে মেয়েদের মধ্যে বা মেয়েদের প্রতিষ্ঠানে যেখানে মেয়েরাই সব কিছুর দ্বায়িত্বে আছে সেখানে মেয়েরা চাকরি করতে পারবে। যেমন গার্লস স্কুল,কলেজ সেখানে যদি সব শিক্ষক, স্টাফ মেয়ে হয় তাহলে সেখানে চাকরি করা বৈধ।
-ডক্টর মুহাম্মদ আব্দুস সামাদ


🖤একটা পরিবারের আয় উপার্জন, দেখভাল এগুলো ব্যাপারে আল্লাহ জিজ্ঞাসাবাদ করবেন পুরুষদের।
আর ঘরের ভিতরে যেমন সন্তান লালন পালন, স্বামীর প্রতি দ্বায়িত্ব কর্তব্য যত্ন, এসব ব্যাপারে আল্লাহ জিজ্ঞাসাবাদ করবেন নারীদের। রসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন,স্বাভাবিক অবস্থায় স্বামীর সংসারের ছেলেমেয়েদের দ্বায়িত্বশীল হলো স্ত্রী। আর স্ত্রীকে এ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।
-শায়খ সিফাত হাসান

*




12 Comments 239 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2021