FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

আমার জন্মদিনে (২য় কিস্তি)

আমার জন্মদিনে (২য় কিস্তি)

*

সো সিচুয়েশন টা এমন, আমার সামনে এক প্যাশেন্ট যার অবস্থা খুবই ক্রিটিক্যাল, বিপি ১৮০/১২০, পালস ১২৪ এন্ড মোস্ট ইম্পর্টেন্টলি স্যাচুরেশন ৬৮%। যার প্রতি মিনিটে ৪-৬ লিটার অক্সিজেন দিতে হবে শুধু অক্সিজেন দিলেই হবে না সাথে নেবুলাইজেশন ও করতে হবে যার জন্য একটা স্পেশাল মাস্কের দরকার। একই সাথে তার হার্ট রেট এবং বিপি মনিটর করা দরকার। আর সেই সাথে একটা ABG ( arterial blood gas analysis একটা স্পেসিফিক টেস্ট যেটার মাধ্যমে বুঝা যায় শ্বাসকষ্টের কারন) করা খুবই দরকার আর ABG করার জন্য দরকার স্পেশাল মেশিন । আর আমার হাতে আছে একটা অক্সিজেন সিলিন্ডার আর ন্যাসাল ক্যানুলা ( যার মাধ্যমে প্রতি মিনিটে ম্যাক্সিমাম ২ লিটার অক্সিজেন দেয় যায়)। সুতরাং অল্টারনেট করে অক্সিজেন আর নেবুলাইজেশন দিতে হবে। প্যাশেন্ট পার্টির কথা শুনে বুঝলাম তাদের বাবা একদিন আগেই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন সেইম সমস্যা নিয়ে, ডাক্তার রা আরো একদিন হাসপাতালে রাখতে বলছিলেন, কিন্তু যেহেতু এদেশের ডাক্তার মাত্রই টাকা খাওয়ার জন্য হাসপাতাল খুলে বসে তাই তারা তাদের আব্বাকে ডাক্তার বারবার বলা সত্ত্বেও হাসপাতালে রাখেন নাই। এখন এই বিপদের মুহুর্তে যখন এক অর্থে সবকিছু শেষ বলা যায় তখন উনার বুঝতে পারছেন ডাক্তার ওনাদের ভালোর জন্যই হাসপাতালে রাখতে বলছিলেন।
এদিকে নেবুলাইজেশন মেশিন ৩ তলায়, জিহাদ কে চিল্লাইয়া বললাম যা তাড়াতাড়ি মেশিন নিয়ে আয়, নেবুলাইজেশন আর অক্সিজেন চলার সাথে সাথে কটসন ইঞ্জেকশনের অর্ডার দিলাম সিস্টার বলে স্যার ভেইন পাই না, অনেক খোজাখুজি করে অবশেষে পেল, ইঞ্জেকশন দেয়ার পর আল্লাহর রহমতে স্যাচুরেশন বেড়ে আসল ৮৯% এ। প্যাশেন্টের সাথে যারা তারা স্যাচুরেশন বাড়ছে দেখে একটু আস্থা পেল। এতক্ষণ কান্নাকাটি করে বুক ভাসানো ২ মেয়ে এখন শান্ত। কিন্তু স্যাচুরেশন ৯৬% এর উপরে না যাওয়া পর্যন্ত রিস্ক থেকেই যায়। আর ২ লিটার অক্সিজেনে স্যাচুরেশন ৯৬% এ যাবে না এটলিস্ট এই প্যাশেন্টের। আর এই প্যাশেন্ট এর স্যাচুরেশন কিছুক্ষণের মধ্যেই আবার ড্রপ করবে। আই সি ইউ ছাড়া গতি নাই। তখন এই শান্ত চেহারা গুলোতেই কান্নার রোল আসবে। এখনো কাউকে কাঁদতে দেখলে নিজের কান্না আসে, আল্লাহ কে ডাকলাম জানিনা এর হায়াত কতটুকু রাখছ, কিন্তু আজকে সুস্থ করে দাও আমার সামনে তার মৃত্যু দিও না এটলিস্ট। প্যাশেন্ট পার্টি কে বললাম এম্বুলেন্স কতদুর? বলল স্যার ২০ মিনিট লাগবে আসতে, ঘড়িতে দেখলাম ৪ টা বাজে। বাংলাদেশে ২০ মিনিট বলছে তার মানে আসতে আসতে ৪ টা ৩০ বাজবে। আমার মাথায় একটাই চিন্তা আল্লাহ এই মানুষের হায়াৎ ৪ টা ৩০ পর্যন্ত রাখছে তো???

*




7 Comments 83 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2022