FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

সুব্রতের নতুন খালা পাওয়ার গল্প

সুব্রতের নতুন খালা পাওয়ার গল্প

*

সুব্রত অনেক ভালো একটা ছেলে।এই ভালো ছেলেটা মেয়েদের অতিরিক্ত কেয়ার করে সব সময়। গতমাসে সুব্রতের ফেসবুকে এক বিবাহিত মহিলার সাথে পরিচয় হয়। কথোপকথন হতে হতে আজ সেই মহিলা সুব্রতের বৌদি। তো আজকে সেই মহিলার সাথে সুব্রত দেখা করতে ঝিনাইদহ থেকে ঢাকার উদেশ্য রওনা দেয়, ঢাকা থেকে তাকে আবার যেতে হবে নোয়াখালী।

তার পাশের সিটে একটা মেয়ে বসেছে,অসম্ভব সুন্দর মেয়েটা। চোখে এক অদ্ভুত মায়া আছে যেই মায়ার জন্য সুব্রত তার সব গুলা প্রাক্তন কে এক নিমিষেই ভুলে যেতে পারবে। অনেক্ক্ষণ দুজনই নিশ্চুপ ছিলো৷ সুব্রত এবার মেয়েটাকে বললো আমার একটা পাতানো খালা ছিলো,একদম আপনার মতো দেখতে।

মেয়েটা বললো তো সেই খালা এখন নাই? সুব্রত বললো না,কোথায় জানি হারিয়ে গেছে। তারপর আবেগে আপ্লুত হয়ে বললো আপনি আমার খালা হবেন? মেয়েটা একটু মুচকি হাসি দিয়ে বললো আমি রাজি আছি। এরপর সারারাস্তা খালা ভাগ্নে গল্প করতে লাগলো।

একটা সময় সুব্রতের খালা তার ব্যাগ থেকে টিফিন বাটি বের করে। সেখানে ছিলো ৫-৬ রকমের নাড়ু। সুব্রতকে তার খালা নাড়ু খেতে বলে। সুব্রত তখন তার খালাকে নাড়ু খাওয়াই দিতে বলে। তার খালা সুব্রতকে নাড়ু খাওয়াই দেয়।

১২ ঘণ্টা পর

সুব্রত নিজেকে রাস্তার পাশে ময়লা এক জায়গায় আবিষ্কার করলো। তার হাতে একটা চিঠি দেখতে পেলো।
“অপরিচিত মেয়ে দেখলেই লুইচ্চামি করতে ইচ্ছা করে? আমি অজ্ঞান পার্টির লোক। এভাবে খালা হওয়ার সুযোগ দেওয়াই আমার নিজ থেকে কোন চ্যালেঞ্জ নিতে হয় নি।নাড়ুর ভিতর ঘুমের ঔষধ মেশানো ছিলো। তোর পকেটে একটা মোবাইল আর মানিব্যাগে ৫ হাজার ৭৪৫ টাকা ছিলো। ৫০০০ আমি নিয়েছি,আর ৭৪৫ তোর পকেটে রেখে দিয়েছি, যেন বাড়ি ফিরতে পারিস ভালোভাবে। খালা বলে ডেকেছিলি তুই,ভাগ্নের জন্য তো ৭৪৫ টাকা খুবই সামান্য। পরের বার দেখা হলে ১৭ রকমের নাড়ু খাওয়াবো। ভালো থাকিস।”


গুরুত্বপূর্ণ কথাঃ সুব্রতের মতো অনেক ছেলে আছে আমাদের সমাজে যারা মেয়ে দেখলেই লাফানো শুরু করে। অপরিচিত মেয়ে দেখলে লাফানো ঠিক না,হতেও তো পারে অজ্ঞান পার্টির লোক।

*




19 Comments 374 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2024